ঢাকাশুক্রবার, ১৭ই মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
আজকের সর্বশেষ সবখবর

কোন অপশক্তিই হাসিনার পতন ঠেকাতে পারবে না : ডা. শাহাদাত হোসেন

নিউজ ডেস্ক | সিটিজি পোস্ট
অক্টোবর ২৭, ২০২২ ৭:০৮ অপরাহ্ণ
Link Copied!

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির আহবায়ক ডা. শাহাদাত হোসেন বলেছেন, যুবদল জাতীয়তাবাদী দলের সবচেয়ে শক্তিশালী অংগসংগঠন। শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের হাতেগড়া যুবদল আজ সময়ের সেরা সুশৃংখল সংগঠনে পরিণত হয়েছে। আজ থেকে ৪৪ বছর আগে হতাশাগ্রস্ত যুব সমাজকে সমাজের মূল ধারায় এনে প্রত্যেক স্তরে সৎ ও মেধাবী যুবকদের নেতৃত্ব গড়ে তোলার লক্ষ্যেই যুবদলের জন্ম। হাসিনা পতন আন্দোলনে প্রধান হাতিয়ার হবে জাতীয়তাবাদী যুবদল।

 

তিনি বলেন, কোন অপশক্তিই হাসিনার পতন ঠেকাতে পারবে না। আজ আমাদের দেশের অর্থনীতি লুঠেরা আওয়ামীলীগের কবলে পড়ে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে। ভোট চোরেরা হাজার হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের নামে পাচার করেছে হাজার হাজার কোটি টাকা। যার ফলে বিদ্যুৎ উৎপাদন ও বিপণন ব্যবস্থা চরমভাবে বিপর্যস্ত। ফলশ্রুতিতে সারাদেশে বিদ্যুৎ আসে আর যায়। হয়তো রাতে আর বিদ্যুতের দেখা নাও যেতে পারে। আগামীতে মোমবাতি বা হারিকেনের আলোতে উন্নয়নের আশার গল্প শুনতে হবে

 

আজ বৃহস্পতিবার (২৭ অক্টোবর) যুবদলের ৪৪তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে চট্টগ্রাম মহানগর যুবদলের উদ্যোগে নগরীর ষোলশহর ২নং গেইট এলাকায় যুব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

 

 

ডা. শাহাদাত আরো বলেন, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে জাতীয়তাবাদী দল ও অংগসংগঠন আজ ঐক্যবদ্ধ। তারেক রহমানের ঘোষণা দেশ যাবে কোন পথে ফয়সালা হবে রাজপথে। আগামীর আন্দোলন সংগ্রামে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি ও অংগসংগঠন দেশনায়ক তারেক রহমানের যেকোন নির্দেশ পালনে বদ্ধপরিকর।

 

প্রধান বক্তার বক্তব্যে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব আবুল হাশেম বক্কর বলেন, যুব ঐক্য প্রগতির মূলমন্ত্রে বলিয়ান শহীদ জিয়ার যুবদল। আজ সারা বাংলাদেশের সবচেয়ে সফল একটি সংগঠন। ফ্যাসিষ্ট আওয়ামীলীগকে হঠাতে যুবদলকে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে। দিপ্তী-শাহেদের নেতৃত্বে চট্টগ্রাম মহানগর যুবদল এগিয়ে যাচ্ছে দুর্বার গতিতে। উন্নয়নের গল্প শুনিয়ে দেশবাসীকে আর খুশি রাখা যাচ্ছে না। দেশের আকাশে-বাতাসে লুঠপাটের দুর্গন্ধ। দেশ পরিচালনায় সম্পূর্ণ ব্যর্থ শাসকগোষ্ঠী। তিনি আরো বলেন, চট্টগ্রাম মহানগর যুবদলকে আন্দোলন সংগ্রামের জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে। দেশনায়ক তারেক রহমানের নির্দেশের অপেক্ষায় জাতীয়তাবাদী শক্তি। আন্দোলন-সংগ্রাম ব্যতীত ফ্যাসিবাদমুক্ত হবে না।

 

চট্টগ্রাম মহানগর যুবদলের সভাপতি মোশাররফ হোসেন দিপ্তীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ শাহেদের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত যুব সমাবেশের পর নানা রঙের বেলুন উড়িয়ে ও শান্তির প্রতীক পায়রা আকাশে উড়িয়ে বর্ণাঢ্য র‌্যালী উদ্বোধন করেন নগর বিএনপি নেতৃবৃন্দ। মহানগর যুবদলের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীল র‌্যালীটি নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের স্মৃতিবিজড়িত ঐতিহাসিক বিপ্লব উদ্যানে ফুলেল শ্রদ্ধা অর্পণ করেন নগর বিএনপি ও নগর যুবদল নেতৃবৃন্দ।

 

প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর যুব সমাবেশে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন নগর যুবদলের সহ সভাপতি নূর আহমদ গুড্ডু, সাহেদ আকবর, এম এ রাজ্জাক, ইকবাল হোসেন সংগ্রাম, ফজলুল হক সুমন, মো. ইলিয়াছ, জাহাঙ্গীর আলম, আবদুল করিম, আবদুল গফুর বাবুল, সাহাব উদ্দিন হাসান বাবু, হায়দার আলী চৌধুরী, নাছির উদ্দিন চৌধুরী নাসিম, মুজিবুর রহমান, জাহেদ হাসান বাবু, আবু সুফিয়ান, মোহাম্মদ আলী সাকি, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক মোশাররফ হোসাইন, যুগ্ম সম্পাদক মো: হুমায়ুন কবীর, ইকবার পারভেজ, এরশাদ হোসেন, আবদুল হামিদ পিন্টু, দীপংকর ভট্টচার্য্য, সেলিম উদ্দিন রাসেল, তৌহিদুল ইসলাম রাসেল, সাংগঠনিক সম্পাদক এমদাদুল হক বাদশা, রাজন খান, ওমর ফারুক, হেলাল হোসেন, সহ সাধারণ সম্পাদক ফেরদৌস আলম, কামাল পাশা, আসাদুর রহমান টিপু, জাহাঙ্গীর আলম বাচা, ওসমান গনি সিকদার, শাহজালাল পলাশ, আহাদ আলী সায়েম, জাফর আহমেদ খোকন, সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য নূর হোসেন উজ্জ্বল, জিল্লুর রহমান জুয়েল, জসিম উদ্দিন সাগর, মোহাম্মদ আলা উদ্দিন, মোহাম্মদ আলী, মহিউদ্দিন মুকুল, এনামুল হক এনাম, ইফতেখার শাহরিয়ার আজম, নুরুল আমিন, ওমর ইমতিয়াজ টিটু, আসাদুজ্জামান রুবেল, সহ সম্পাদক বৃন্দ আতিকুর রহমান, মনোয়ার হোসেন মানিক, কমল জ্যোতি বড়ুয়া, শাহেদুল ইসলাম, জহিরুল ইসলাম জহির, হামিদুল হক চৌধুরী, মনজুর আলম, হাফেজ কামাল উদ্দিন, মেজবাহ উদ্দিন মিন্টু, গুলজার হোসেন মিন্টু, জাহাঙ্গীর আলম মানিক, সালাহ উদ্দিন, মো. ইদ্রিছ, আনোয়ার হোসেন, আশরাফ উদ্দিন, জাহাঙ্গীর আলম বাবু, হোসেন জামান, ইলিয়াছ হাসান মঞ্জু, মিফতাহ উদ্দিন সিকদার টিটু, ইব্রাহিম খান, দেলোয়ার হোসেন, মো. জসিম উদ্দিন, আরিফ হোসেন, আবদুল্লা আল জিতু, আবু বক্কর ছিদ্দিকী আবু, মো.ইউসুফ, মিজানুর রহমান দুলাল, আবুল কালাম প্রমুখ।