ঢাকাশনিবার, ২২শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

আমি দলের সর্বনাশ করেছি, ক্ষমা চাইলেন শাদাব

স্টাফ রিপোর্টার | সিটিজি পোস্ট
সেপ্টেম্বর ১২, ২০২২ ৩:১৯ অপরাহ্ণ
Link Copied!

উৎসবের জন্য মুখিয়ে ছিল পাকিস্তান। ফাইনালের আগে ফেভারিটও ছিল তারা। এমন কী রোববার টসে যখন জিতলেন বাবর আজম-তখনও হাসিমুখ দলটির। কারণ দুবাই ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে টস জেতা মানেই যেন ম্যাচ অর্ধেক জিতে যাওয়া। সদ্য শেষ এশিয়া কাপে তো তেমনটাই দেখা গেছে!

কিন্তু ফাইনালে হিসাবের ছক উল্টে গেল! ২৩ রানের জয় নিয়ে শ্রীলঙ্কা এশিয়া কাপের চ্যাম্পিয়ন। হতাশা নিয়েই মাঠ ছাড়ল বাবর আজমের দল। এমন হারের পর নিজেকে দায়ী করলেন শাদাব। ক্ষমা চাইলেন তিনি।ক্রিকেটে তো বলাই হয় ক্যাচ মিস মানেই ম্যাচ মিস। শ্রীলঙ্কার ভানুকা রাজাপাকসাকে জীবন দিয়ে সেটা চরম মূল্যে বুঝতে পারল পাকিস্তান। তিনি দুইবার জীবন পেয়েছেন শাদাব খানের বদন্যতায়। শেষ অব্দি ৪৫ বলে অপরাজিত ৭১ রান তুলে দলকে বড় স্কোর এনে দেন ভানুকা। অথচ শাদাব জীবন দিয়েছেন তাকে।

তাইতো ফাইনালে হারের পর শাদাব টুইট করে ক্ষমা চাইলেন। তিনি লিখেছেন, ‘ক্যাচই আসলে ম্যাচ জেতায়। আমি দুঃখিত, এই হারের দায় নিচ্ছি। আমি আমার দলের সর্বনাশ করেছি। দলের পজেটিভ দিক হলো, নাসিম শাহ, হারিস রউফ, মোহাম্মদ নওয়াজ আর পুরো বোলিং আক্রমণ ছিল দুর্দান্ত। মোহাম্মদ রিজওয়ান দারুণ লড়েছে। পুরো দল তাদের সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করেছে।’ সঙ্গে শ্রীলঙ্কাকে অভিনন্দনও জানালেন শাদাব।

ভানুকাকে শাদাব প্রথম জীবন দেন ৪৬ রানে। ১৮তম ওভারে হারিস রউফের বলে লং অনে ক্যাচ। এরপর বাউন্ডারির কাছে আসিফ আলী ভানুকার ক্যাচ নিতে যাচ্ছিলেন, কিন্তু শাদাব এসে আসিফের কনুইয়ে ধাক্কা দিলে বল চলে যায় মাঠের বাইরে। তখন ৫১ রান ছিল ভানুকার! তখনও ক্যাচটা হাতে জমাতে পারলে দ্রুত ফেরানো যেতো লঙ্কানদের!ফিল্ডিংয়ে খারাপ করলেও শাদাব বল হাতে চার ওভারে ২৮ রান দিয়ে নেন ১ উইকেট।

এটি