ঢাকারবিবার, ১৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
আজকের সর্বশেষ সবখবর

জ্বালানি শেষ, বিক্ষুব্ধ শ্রীলঙ্কায় পৌঁছাল আইএমএফ প্রতিনিধি দল

নিউজ ডেস্ক | সিটিজি পোস্ট
জুন ২০, ২০২২ ১০:২৬ অপরাহ্ণ
Link Copied!

 

পেট্রোল ও ডিজেলের মজুত শেষ হয়ে যাওয়ায় ফের বিক্ষোভ শুরু হয়েছে শ্রীলঙ্কায়। এই বিক্ষুব্ধ পরিস্থিতিতেই প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহের সঙ্গে বৈঠক করতে রাজধানী কলম্বোয় পৌঁছেছে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) ৯ সদস্যের প্রতিনিধিদল।

 

শ্রীলঙ্কার সরকারের আবেদনের প্রেক্ষিতে দেশটিকে নতুন ঋণ দেওয়ার বিষয়ে আলোচনা করতেই কলম্বো এসেছে আইএমএফের প্রতিনিধি দল। অর্থ মন্ত্রণালয়ের কার্যালয়ে প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহের সঙ্গে এই বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে।

 

যদি আলোচনা সফল হয়, সেক্ষেত্রে শ্রীলঙ্কার অর্থনীতিকে সচল রাখতে এই নিয়ে ১৭তম বার ঋণ দেওয়া হবে আইএমএফের পক্ষ থেকে।

 

১৯৪৮ সালে যুক্তরাজ্যের কাছ থেকে স্বাধীনতা লাভের পর ইতিহাসের সবথেকে ভয়াবহ অর্থনৈতিক সংকট পার করছে ২ কোটি ২০ লাখ মানুষ অধ্যুষিত দেশ শ্রীলঙ্কা। সীমাহীন অর্থনৈতিক অব্যবস্থাপনা ও করোনা মহামারি এই সংকটের প্রধান কারণ।

 

বিদেশী মু্দ্রার রিজার্ভ না থাকায় জ্বালানি, খাবার এবং ওষুধের মত অতি জরুরি পণ্যও আমদানি করতে পারছে না ভারত মহাসাগরের ছোট এই দ্বীপরাষ্ট্রটি।

 

এর মধ্যে জ্বালানি সংকট তীব্র হয়ে উঠেছে শ্রীলঙ্কায়। ডিজেলের সরবরাহ অনিয়মিত হয়ে পড়ায় প্রয়োজনীয় বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে পারছে না শ্রীলঙ্কার বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রগুলো। ফলে গত কয়েকমাস ধরে সেখানে দিনের বেশিরভাগ সময়ই বিদ্যুৎ থাকছে না। এছাড়া পেট্রোল, ডিজেল, রান্নার গ্যাস কিনতে লোকজনকে ঘণ্টার পর ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হচ্ছে।

 

গত এপ্রিলে শ্রীলঙ্কা ঘোষণা দেয়, বৈদেশিক মুদ্রার স্বল্পতার কারণে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থা থেকে নেওয়া ১ হাজার ২০০ ডলারের ঋণ আর পরিশোধ করতে পারবে সরকার। সেই ঘোষণার পর এই প্রথম আইএমএফ প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক

 

গত ১৬ জুন এক সংবাদ সম্মেলনে শ্রীলঙ্কার জ্বালানি ও বিদ্যুৎমন্ত্রী জানিয়েছিলেন দেশে যে পরিমাণ পেট্রোল ও ডিজেলের মজুত রয়েছে, তাতে বড়জোর ৫ দিন কোনোভাবে চলা যাবে।

 

সেই হিসেবে বর্তমানে দেশটির জ্বালানি শেষের পথে। রোববার থেকেই বন্ধ হয়ে গেছে অধিকাংশ পাম্প। বর্তমানে অল্প যে কয়েকটিতে পেট্রোল-ডিজেল মিলছে, আর সেইসব পাম্পের সামনে ব্যাপক ভিড় শুরু হয়েছে। এই ভিড় সামলাতে প্রতিটি পাম্পে সেনা সদস্যদের মোতায়েন করা হয়েছে বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

 

এদিকে, জ্বলানির সরবরাহ কমে যাওয়ায় রোববার থেকেই বিক্ষোভ শুরু হয়েছে শ্রীলঙ্কায়। এই দিনের দেশের বিভিন্ন এলাকাসহ অর্থ মন্ত্রণালয়ের কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিয়েছেন একদল বিক্ষোভকারী।

 

অবশ্য সোমবার সকালেই তাদের উঠিয়ে দিয়েছে পুলিশ। এক বিবৃতিতে শ্রীলঙ্কার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, আইএমএফ প্রতিনিধি দলের নিরাপত্তার জন্য সার্বক্ষণিকভাবে পুলিশ সদস্যদের একটি বিশেষ প্রশিক্ষত বাহিনী তৎপর থাকবে।

 

একদিকে সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে শ্রীলঙ্কার জ্বালানিমন্ত্রী কাঞ্চনা উইজেসেকারা জানান, জ্বালানি কিনতে কেন্দ্রীয় ব্যাংক পেট্রোল ও ডিজেল ক্রয় করতে ৯ কোটি ডলার ছাড় দিয়েছে। এই অর্থ দিয়ে ১২ হাজার ৩০০ টন পেট্রোল ও ৪ হাজার টন ডিজেল কেনা হয়েছে। আগামী বৃহস্পতিবার এই পেট্রোল ও শুক্রবার ডিজেলের চালান কলম্বোর বন্দরে এসে পৌঁছাবে বলে সাংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন তিনি।