ঢাকারবিবার, ২৩শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

প্রতিবাদ করব, প্রতিশোধ নেব – ওবায়দুল কাদের

নিউজ ডেস্ক | সিটিজি পোস্ট
জুন ১০, ২০২২ ১১:০৫ অপরাহ্ণ
Link Copied!

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে কটূক্তির অভিযোগে বিএনপির নেতাদের উদ্দেশ্যে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘আমরা প্রতিবাদ করব, আমরা প্রতিশোধ নেব।’

 

শুক্রবার রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের গেটে শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের বিক্ষোভ মিছিল পূর্ব-সমাবেশে এ হুঁশিয়ারি দেন তিনি।

 

ওবায়দুল কাদের বলেন, গোটা ঢাকা মহানগরীর রাজপথ আজ আওয়ামী লীগের দখলে, আওয়ামী লীগ জেগেছে। আওয়ামী লীগ রাজপথে ছিল, রাজপথে আছে এবং থাকবে।

 

তিনি বলেন, শেখ হাসিনাকে কটূক্তি করলে আমাদের আবেগে লাগে। বঙ্গবন্ধুকে খারাপ কথা বললে আমাদের খারাপ লাগে। বঙ্গবন্ধুর পরিবারকে অপমান করলে আমরা অপমানিত বোধ করি। শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকি দিলে আমাদের আবেগ আহত হয়, আমরা সহ্য করতে পারি না। আমরা কাউকে গালি দেই না, আমরা কারও বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করি না। যেটা বিএনপি শুরু করেছে।

 

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, আমি বলে দিতে চাই, পঁচাত্তর আর ২০২২ এক কথা নয়। বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে খুনিদের পুরস্কৃত করেছে, ইনডেমনিটি দিয়েছে। শেখ হাসিনার কিছু হলে আওয়ামী লীগ ঘরে বসে আঙুল চুষবে না। রাজপথে আছি, রাজপথে থেকে তার সমুচিত জবাব দেবে।

 

তিনি বলেন, ঢাকা মহানগর উত্তরের মতো দক্ষিণ আওয়ামী লীগ রাজপথে থেকে দেখিয়ে দিয়েছে, আমরাও পারি। আমরা বঙ্গবন্ধুকন্যার অপমান কোনো দিন সহ্য করব না, আমরা প্রতিবাদ করব, আমরা প্রতিশোধ নেব।

 

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে সুশৃঙ্খল ও ঐক্যবদ্ধ আওয়ামী লীগ শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অংশ নিয়ে বিজয়ের বন্দরে পৌঁছাবে বলেও আশা প্রকাশ করেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক।

 

তিনি বলেন, শেখ হাসিনার উন্নয়ন দেখে যখন দেশের মানুষ খুশি, তখন বিএনপির নেতাদের মুখে কালো মেঘ ঘনীভূত হয়েছে। বিএনপি দিনের আলোতে রাতের অন্ধকার দেখতে পায়, শেখ হাসিনার উন্নয়ন তারা দেখে না।

 

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ২৫ তারিখ (জুন) পদ্মা সেতু, এ বছরের শেষের দিকে কর্ণফুলী টানেল আসছে; ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেস আসছে, এক্সপ্রেস ওয়ে আসছে, মাতারবাড়ি আসছে। কত উন্নয়ন দেখবেন, একের পর এক শেখ হাসিনা যখন উদ্বোধন করবেন আপনারা চোখে তখন সরিষার ফুল দেখবেন।

 

তিনি বলেন, নিজেরা তো কিছু করতে পারেন না, অন্যকে চোর বলেন? যে লুটপাট করেছে সে অন্যকে লুটপাটকারী বলবেন। এসব অপপ্রচারের বিরুদ্ধে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা সমুচিত জবাব দেব।

 

মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের বিক্ষোভ মিছিল কর্মসূচিতে আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, কামরুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন, মির্জা আজম, শ্রমবিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, কেন্দ্রীয় সদস্য শাহাবউদ্দিন ফরাজী, সানজিদা খাতুন ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস।