ঢাকাশনিবার, ২২শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

গোপালগঞ্জ পৌর নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন দুই মেয়রপ্রার্থী

জেলা প্রতিবেদক | সিটিজি পোস্ট
জুন ১০, ২০২২ ১১:০০ অপরাহ্ণ
Link Copied!

 

গোপালগঞ্জ পৌর নির্বাচন থেকে দুই মেয়রপ্রার্থী সরে দাঁড়িয়েছেন। তারা হলেন মেয়রপ্রার্থী জিএম শাহাবুদ্দিন আজম ও রেজাউল হক রাজু। ১৫ জুন হতে যাওয়া নির্বাচনে মেয়রপ্রার্থী শেখ রকিব হোসেনকে সমর্থন জানিয়ে শুক্রবার (১০ জুন) প্রতিদ্বন্দ্বিতা থেকে সরে দাঁড়ান তারা।

 

জানা গেছে, শুক্রবার দুপুরে শহরের চৌরঙ্গীতে অনুষ্ঠিত এক সমাবেশে তিনি নিজেকে মেয়র পদের প্রার্থিতা প্রত্যাহার করেন মেয়রপ্রার্থী জিএম শাহাবুদ্দিন আজম। অপরদিকে শহরের সোনাকৌড়ের নিজ বাড়িতে রেজাউল হক শিকদার রাজু এক সংবাদ সম্মেলনে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন।

 

জিএম শাহাবুদ্দিন আজম বলেন, জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দলীয় মেয়রপ্রার্থী হিসেবে রকিব হোসেনকে সিদ্ধান্ত দেওয়ায় পৌর নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালাম। মেয়রপ্রার্থী রকিব হোসেনকে সমর্থন দিলাম। পৌরবাসীর সকল কাজের সঙ্গে আছি, ছিলাম, থাকব।

 

পরে মেয়রপ্রার্থী শেখ রকিব হোসেন দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে শহরের বেদগ্রামে মেয়র পদে মনোনয়ন প্রত্যাহারকারী জেলা যুবলীগের সভাপতি শাহাবুদ্দিন আজমের বাসায় গিয়ে তাকে ফুলের মালা দিয়ে বরণ করেন।

 

এদিকে, শেখ রকিব হোসেনকে সমর্থন জানিয়ে পৌরসভার অপর মেয়রপ্রার্থী রেজাউল হক রাজু নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন। শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে শেখ রকিব হোসেন তার দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে শহরের সোনাকৌড়ে রাজুর বাসায় যান। এ সময় রেজাউল হক রাজু নির্বাচন থেকে সরে যাওয়ার ঘোষণা দিয়ে শেখ রকিব হোসেনকে সমর্থন জানান।

 

এ সময় রেজাউল হক রাজুকে ফুলের মালা দিয়ে বরণ করেন শেখ রকিব হোসেন। আসন্ন নির্বাচনে মেয়র পদে শেখ রকিব হোসেনকে বিজয়ী করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন রেজাউল হক রাজু।

 

এ সময় শেখ রাকিব হোসেনের ছোট ভাই বাংলাদেশ মিল্কভিটার চেয়ারম্যান শেখ নাদের হোসেন লিপু, মেয়র পদে মনোনয়ন প্রত্যাহারকারী অপর প্রার্থী মৃণাল কান্তি চৌধুরী রায় পপা, জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক বদরুল আলম বদরসহ আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

 

এর আগে, গোপালগঞ্জ পৌর নির্বাচন থেকে আরেক মেয়র প্রার্থী মৃণাল কান্তি রায় চৌধুরী পপা গত ৫ জুন রাতে এক সংবাদ সম্মেলন করে রকিব হোসেনকে সমর্থন দিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ান।